1. admin@rmtvbangla.com : admin :
  2. sagorahamed619@gmail.com : Sagor Ahamed Milon : Sagor Ahamed Milon
শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০৯:৫৫ অপরাহ্ন

সাভারে মাত্র ছয় হাজার টাকার জন্য বন্ধুকে খুন, গ্রেফতার ১

RM টিভি বাংলা
  • আপডেট সময় : সোমবার, ২৮ মার্চ, ২০২২
  • ৬৬ বার পঠিত

সাভারে বন্ধুর হাতে খুন হওয়া সাকিব আল মামুনের (১৮) মরদেহ উদ্ধারের ৩ ঘন্টার মধ্যে প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আসামিকে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। ২৭ মার্চ বিকেলে এতথ্য নিশ্চিত করেছেন সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক ও ভবানীপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোখলেছুর রহমান।
এর আগে রাতেই অভিযান চালিয়ে বলিয়ারপুরের কোন্ডা কোটপাড়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করেন তিনি।
গ্রেফতার প্রধান আসামি আব্দুল আরমান পিয়াস (১৮)। তিনি ওই এলাকার ইউসুফ আলীর ছেলে। তিনি নিহত সাকিব আল মামুনের বন্ধু ছিলেন বলে জানা গেছে।
মামলার অপর আসামিরা হলেন- একই এলাকার মোহাম্মদ আলীর ছেলে ইমন (১৮) ও মিজানুর রহমানের ছেলে নাবিনসহ (১৮) অজ্ঞাতনামা আরও দুই থেকে তিন জন।

নিহত সাকিব আল মামুন বলিয়াপুরের কোন্ডা কোটপাড়া এলাকার কাঞ্চন মিয়ার ছেলে। তিনি আমিন বাজার এলাকার “মিরপুর মফিদ-ই-আম স্কুল অ্যান্ড কলেজের” দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। পুলিশ জানায়, পথচারীদের খবরের ভিত্তিতে সাভারের বনগাঁও ইউনিয়নের কোটাপাড়া এলাকার আবুল কাশেমের নির্মাণাধীন বাড়ির সেপটিক ট্যাংক থেকে শনিবার বিকেলে মামুনের গলিত মরদেহ উদ্ধার করা করা হয়। এর আগে গত ১৭ মার্চ নিখোঁজ হয় মামুন। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকার সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এঘটনায় রাতেই নিহতের বড় ভাই রাকিব মিয়া তিন জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও দুই থেকে তিন জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। মরদেহ উদ্ধারের তিন ঘন্টার মধ্যেই অভিযান পরিচালনা করে প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করেন উপ-পরিদর্শক মোখলেছুর রহমান।
নিহত সাকিব আল মামুনের বড় ভাই রাকিব বলেন, আমার ভাই তাকে মোটরসাইকেল কিনে দিতে বলে ছিলো । কিন্ত আমাদের সামর্থ না থাকায় পরে কিনে দিতে চাই। সে নিজেই মোটরসাইকেল কেনার জন্য লেখাপড়ার পাশাপাশি চাকরি নিয়ে টাকা জমানো শুরু করে। সেই জমানো টাকা থেকে পিয়াস ৬ হাজার টাকা ধার নেয়। এই টাকা চাইলে তারা সাকিবকে হত্যার পরিকল্পনা করে। পরিকল্পনা অনুযায়ী গত ১৭ মার্চ তাকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে ছুড়িকাঘাত করে হত্যা করে ।


এর পর কোটাপাড়া এলাকার কাশেমের নির্মানাধীন বাড়ির সেফটিক ট্যাংকে মরদেহ ফেলে দেয়। গত ১৭ মার্চ থেকে আমাদের পরিবারের কারও চোখে ঘুম নেই। খোঁজাখুজি করে না পেয়ে আমরা থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করি।

সাভারের ভবানীপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোখলেছুর রহমান বলেন, মরদেহ উদ্ধারের তিনঘন্টা পরেই প্রাধন আসামি পিয়াসকে গ্রেফতার করি। তাকে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হলে আদালত ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত । পিয়াস ধারের টাকা চাইলে তার সহযোগীদের নিয়ে সাকিবকে হত্যা করে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। এঘটনায় হত্যায় ব্যবহার করা রক্তমাখা ছুড়ি উদ্ধার করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা